ইসলামী ঐক্যজোট থেকে পদত্যাগ করায় আল্লামা বাবুনগরীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ৫০১ আলেম!

হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমীর, দেশের প্রবীণ আলেম আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ধর্মনিরপেক্ষবাদী আওয়ামী লীগের সাথে সম্পর্ক ও দালালি করার কারণে ইসলামী ঐক্যজোট থেকে প্রকাশ্যে পদত্যাগ করায় আল্লামা বাবুনগরীকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন দেশের ৫০১ আলেম।

গতকাল শনিবার দেয়া বিবৃতিতে তারা বলেন, হক্কানী আলেমগণ কখনো কুফুরী মতবাদ ধর্মনিরপেক্ষবাদকে সমর্থন করতে পারে না। নীতি-আদর্শ বিসর্জন দিয়ে বাতিল শক্তির সাথে আঁতাত করতে পারে না। আল্লামা বাবুনগরী সময়োপযোগী ও সাহসী সিদ্ধান্ত নেয়ায় দেশবাসীর পক্ষ থেকে আমরা তাকে ধন্যবাদ জানাই।

কওমী সনদের স্বীকৃতি ওলামাদের ন্যায্য অধিকার, এ জন্য ওলামায়ে কেরামের ঐতিহ্য বিলীন করে কারো গোলাম হওয়া যাবে না।

বিবৃতিদাতাগণ হলেন, মুফতি হিফজুর রহমান, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা মফিজুর রহমান, মুফতি আব্দুল বারী, মাওলানা আল আমীন, মাওলানা মুজিবুর রহমান, মাওলানা আশরাফুল হক আমিনী, মাওলানা জাফর আহমদ, মাওলানা আমানুল্লাহ,

মাওলানা ইসহাক শরিফ, মাওলানা মুফতি সিদ্দিকুর রহমান, মাওলানা দেলোয়ার হোসেন, মুফতি রুহুল আমীন, মাওলানা সুলাইমান, মাওলানা অলিউর রহমান, মাওলানা ফারুক আহমদ, মুফতি জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

সুত্র: দৈনিক সংগ্রাম

অারো পড়ুন:

-বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে গায়েবি মামলা দেওয়া হচ্ছে-ফখরুল

বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে সারাদেশে বিএনপির নেতা কর্মীদের নামে গায়েবি মামলা দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন থেকে বিএনপিকে দূরে রাখার জন্য সরকার যত ধরনের কূটকৌশল আছে তা প্রয়োগ করছে।

গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত সারাদেশে গায়েবি মামলা হয়েছে ৪ হাজার ১৪৯টি। এসব মামলায় এজাহারে নাম উল্লেখ করে আসামি করা হয়েছে ৮৬ হাজার ৬৯২ জনকে। অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে ২ লাখ ৭৬ হাজার ২৭৭ জনকে।

to days pressbriffing

সব মিলিয়ে আসামির সংখ্যা ৫ লাখ ৬২ হাজার ৯৬৭ জন। এ পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়েছে ৪ হাজার ৬৮৪ জনকে। রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে ২৭৪ জনকে।’

তিন বলেন, সরকার সব ধরনের চেষ্টা চালাচ্ছে বিএনপি যেন নির্বাচনে অংশ নিতে না পারে।
আমাদের সিনিয়র নেতাদের নামে যেসব মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে তা দ্রুত শেষ করার চেষ্টা করছে সরকার।

যাতে তাদেরকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখা যায়। আমাদের দলীয় প্রধানকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করছে সরকার।

অথচ সরকারপ্রধান ও আওয়ামীলীগের নেতারা দেশে বিদেশে বলছেন নির্বাচনের পরিবেশ সুন্দর রয়েছে এবং সংবিধান অনুযায়ী আগামী নির্বাচন হবে।’

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যরিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘গায়েবি মামলার বিরুদ্ধে আমরা হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন করার চিন্তা করছি।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধান বা যারা এই মামলা দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না এই বিষয়ে আমরা হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন করবো

Facebook Comments