ব্যাটিং এর পর এবার বোলিং এ চমক দেখাচ্ছে আশরাফুল

বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট লীগ এনসিএল দিয়ে আবারও নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ এসেছে সদ্যই সবধরণের ক্রিকেট থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়া মোহাম্মদ আশরাফুলের।

আর সেই লক্ষ্যে ভালভাবেই এগিয়ে যাচ্ছেন ঢাকা মেট্রোর হয়ে খেলা এই ব্যাটসম্যান। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এনসিএলের টায়ার ২ এর এই ম্যাচে সিলেট ডিভিশনের মুখোমুখি হয়ে ব্যাট হাতে ৫৩ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেছেন আশরাফুল।

যদিও শাহনুর রহমানের তৃতীয় শিকার হয়ে ফিরলে ইনিংস আর লম্বা করা হয়নি তাঁর। আশরাফুল সাজঘরে ফিরে গেলে তাঁর দলও আর খুব বেশি এগোতে পারেনি। ৪ উইকেটে দিনের খেলা শুরু করা ঢাকা মেট্রো তাদের প্রথম ইনিংস শেষ করেছে ৪২৬ রানে।

এরপর ব্যাট হাতে ঝলক দেখানো আশরাফুল বল হাতেও শুরুটা দারুণ করেছেন।
সিলেট ডিভিশনের ওপেনার খন্দকার সায়েম আলম রিজভিকে আরাফাত সানির হাতে ক্যাচ বানিয়ে ঢাকা মেট্রোর পক্ষে প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছেন তিনি।

ফলে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সিলেটের স্কোর দাঁড়িয়েছে ১ উইকেটে ২৭ রান। ক্রিজে অপরাজিত আছেন শাহনাজ আহমেদ এবং ইমতিয়াজ হোসেন। এর আগে ম্যাচটির শুরুতে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ঢাকা মেট্রোর অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুব।

পরবর্তীতে ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনার সাদমান ইসলামের দেড়শ রানের ইনিংসের সুবাদে ৩৩২ রানের বড় পুঁজি পেয়েছিল আশরাফুলের দল। সাদমান ছাড়াও অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুবও খেলেছেন ৫০ রানের অনবদ্য একটি ইনিংস।

অপরদিকে সৈকত আলি ৪২, মেহরাব হোসেন ৩৮ এবং শামসুর রহমান ৩৪ রান করেন। সিলেট ডিভিশনের পক্ষে সবথেকে সফল বোলার স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র। ৫৩.৪ ওভার বোলিং করে ১৬৫ রান খরচায় একাই ৬ উইকেট শিকার করেন তিনি।

এছাড়াও শাহনুর রহমান নিয়েছেন ৭৫ রানে ৩ উইকেট এবং ১টি উইকেট পেয়েছেন আবু জায়েদ রাহি।

আরো পড়ুন: কত রানে অপরাজিত আশরাফুল, দেখুন স্কোর

শুরু হয়েছে জাতীয় ক্রিকেট লীগের, এনসিএল। এনসিএলের ২০তম এ আসরের দ্বিতীয় স্তরের প্রথম খেলায় ঢাকা মেট্রোর হয়ে ব্যাটিংয়ে নেমেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ব্যক্তিগত ৫০ রানে অধিনায়ক-

মার্শাল আইয়ুব আউট হলে আশরাফুলকে নামান হয় পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে। সোমবার টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা মেট্রো। শুরুটা ভাল হলেও আবু জায়েদ রাহীর বলে ৪২ রান করে আউট হয়ে যান ওপেনার সৈকত আলী।

এরপর শামসুর রহমানকে নিয়ে জুটি গড়েন সাদমান। কিন্তু এনামুল হক জুনিয়রের বলে লেগ বিফরের ফাঁদে পরে ৩৪ রান করে সাজঘরে ফিরে যান শামসুর রহমান। তবে ব্যাট হাতে এক প্রান্ত আগলে রেখেছিলেন সাদমান।

কিন্তু ২৩৮ বল খেলে ১৫৭ রান করে শাহনুর রহমানের বলে খন্দকার সায়েম আলম রিজভির হাতে ধরা পড়েন তিনি। যেখানে ২টি ছয় এবং ২০টি চার হাঁকিয়েছেন তিনি। দলকে ভাল অবস্থানে নিয়ে যেতে ব্যাট হাতে ভালই পারফর্মেন্স দেখাচ্ছিলেন অধিনায়ক মার্শাল।

কিন্তু শাহনুরের বলে ক্যাচ দিয়ে ৫০ রান করে সাজঘরে ফিরে যান তিনিও। বর্তমানে ক্রিজে রয়েছেন দুই নতুন ব্যাটসম্যান আশরাফুল ০ এবং মেহরাব হোসেন জুনিয়র ১৬।
রিপোর্টটি লেখার মুহূর্তে ঢাকা মেট্রোর সংগ্রহ ছিল ৮৫ ওভার শেষে ঢাকার সংগ্রহ চার উইকেট হারিয়ে ৩১৯ রান।

ঢাকা মেট্রো একাদশঃ মার্শাল আইয়ুব অধিনায়ক, মোহাম্মদ আশরাফুল, মেহরাব হোসেন জুনিয়র, শামসুর রহমান, আরাফাত সানি, সৈকত আলি, সাদমান ইসলাম, আসিফ হাসান, আবু হায়দার রনি, মোঃ শহিদুল, কাজি অনিক।

সিলেট একাদশঃ ইমতিয়াজ হোসেন তান্না অধিনায়ক, জাকির হাসান, অলক কাপালি, শাহনাজ আহমেদ, খন্দকার সায়েম আলম রিজভি, এনামুল হক জুনিয়র, খন্দকার রাজিন সালেহ আলম, শাহনুর রহমান, আবু জায়েদ চৌধুরি রাহি, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেন।

Facebook Comments