আ. লীগের করুণ ভবিষ্যত ভেবে কাঁদছি : মান্না

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে হেসেছি কিন্তু আওয়ামী লীগের করুণ ভবিষ্যত ভেবে কাঁদছি’। ঠিক এভাবেই প্রতিক্রিয়া দিলেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, দলটির ভবিষ্যৎ এতই করুণ, যা দেখে স্বাধীনতার পক্ষের সবাইকেই কাঁদতে হবে।

সোমবার গুলশানে নিজ বাসভবনে এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপচারিতায় এসব কথা বলেন মান্না। রোববার বিকেলে গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তাকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মন্তব্যের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে এসব কথা বলেন মাহমুদুর রহমান মান্না।

ওই সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মান্না একসময় আমাদের দলে (আওয়ামী লীগ) ছিলেন। তিনি বেশ ভালো লেখেন। আওয়ামী লীগে এলে আমি বললাম, যখন অন্য দল করতেন তখন আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে বেশি বেশি লিখতেন। তো এখন আমাদের পক্ষেও কিছু লেখেন। এ কথা শুনেই মান্না, জুড়ে দেয় কান্না।

প্রধানমন্ত্রীর এমন মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মান্না বলেন, ‘আমি তো এখনও লিখতে চাই। কী লিখব, প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাজেশন চাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী আপনি বলুন, কী নিয়ে লিখব? আমাকে সাজেশন দেন।

আমি জানি, তিনি সাজেশন দিতে পারবেন না। কারণ আওয়ামী লীগের ভালো দিক নেই যে তিনি সাজেশন দেবেন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর সবকিছু শেষ করে ফেলেছেন। তাই আওয়ামী লীগের আর এমন কোনো ভালো দিক নেই যেটা নিয়ে আমি ভালো কিছু লিখতে পারি।’

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী হয়তো কিছুই টের পাচ্ছেন না। আর টের পাওয়ার কথাও নয়। কারণ ক্ষমতায় থাকলে সবাই অতীত ভুলে যায়। আগের সেই আওয়ামী লীগ এখন আর নেই।

তবে জাতীয় নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ব্যবহার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যকে স্বাগত জানান মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, একনেকে (জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি) পাস হয়নি। অথচ এলসি (ঋণপত্র) খুলে দিয়েছে।

এর মানে কী? অবশ্যই এটি টাকা লুটপাটের প্রকল্প। এই প্রকল্পের সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে তো প্রধানমন্ত্রী এখনও ব্যবস্থা নেননি। তবে প্রধানমন্ত্রী এ প্রসংগে বলেছেন, ‘তাড়াহুড়া করে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ হবে না’ তার এই বক্তব্যেকে স্বাগত জানাই।

সুত্র: -সারা বাংলা

Facebook Comments